শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:২২ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ:
ধামগড় ইউঃ শ্রমিক লীগের সাধাঃ সম্পাদক খোকনের মায়ের মৃত্যুতে সভাপতি মোশারফের শোক বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে সনমান্দী ইউপি’র ৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের সবাইকে পরি বানু’র শুভেচ্ছা ধামগড় ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি হলেন গাজী আঃ কাদির ধামগড় ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত// সভাপতি মোশারফ ও সম্পাদক খোকন আমরা অহিংস ও নিরস্ত্র যুদ্ধ করবো-ভিপি বাদল মেয়র হাছিনা গাজীকে ও কাউন্সিলর আতিকুর রহমানকে পুনরায় নির্বাচিত করতে মতবিনিময় সভা আব্দুল হাই ভূঁইয়া’র ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এড. শাহাজাদা ভূঁইয়া’র গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি জামপুর ইউনিয়নের মাঝেরচরে শেখ রাসেল শিশু কিশোর ফুটবল টুর্নামেন্টের উদ্বোধন মদনপুর ইউনিয়ন আ’লীগের উদ্যোগে ও শেখ রুহুল আমিনের সৌজন্যে ভিপি বাদলের মাস্ক বিতরণ বন্দরের মিনারবাড়িতে বঙ্গবন্ধু পাঠাগারের সৌজন্যে ভিপি বাদলের মাস্ক বিতরণ

মুছাপুর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি হতে চান আব্দুল কাদির

স্টাফ রিপোর্টারঃ
গত বছরের ২৬ জুলাই বন্দর উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ণ ফরম বিতরণ করা হয়েছে। সেক্ষেত্রে খুব শীঘ্রই অত্র মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হবে বলে প্রত্যাশা নেতা-কর্মীদের। এদিকে উক্ত ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির পদ প্রত্যাশা করছেন অত্র মুছাপুর ইউপি’র ২নং ওয়ার্ড এর সাবেক মেম্বার আব্দুল কাদির।

গণমাধ্যমের সাথে আলাপকালে আব্দুল কাদির জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ মধ্যবিত্ত, অসহায়, দিনমজুর ও খেটে খাওয়া মানুষদের মাঝে আমার ব্যক্তিগত অর্থায়ণে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করেছি এবং ঈদের পূর্বে অসহায় পরিবারের মাঝে নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেছি। এমনকি সরকারি বরাদ্দকৃত খাদ্যসামগ্রীও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মাধ্যমে সমন্বয় করে আমাদের এলাকার অসহায় ও কর্মহীন পরিবারের মাঝে সুষ্ঠুভাবে বন্টন করেছি। তাছাড়া ঈদের পর দিন থেকে অদ্যবধি বিভিন্ন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের সাথে কথা বলেছি। তারা বর্তমান ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির প্রতি ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। দুঃসময়ে যারা তাদের খোঁজ খবর রাখবেন এবং যারা তাদেরকে মূল্যায়ণ করবেন এমন নেতাকে তারা সভাপতি হিসেবে চান। তারা সভাপতি পদে নেতৃত্বের পরিবর্তন চান। আর তাই তারা আমাকে আগামী দিনে মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দেখতে চান বলে মতামত দিয়েছেন।

আব্দুল কাদিরের সমন্ধে জানা যায়, তিনি ২০০২ সালে অত্র ইউনিয়ন এর সাবেক ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন এবং সভাপতির মৃত্যুতে ২০০৭ সাল থেকে অদ্যাবদি উক্ত ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির নির্দেশনা মোতাবেক ২০০৮ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত অত্র ইউনিয়নের ২,৩,৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের কার্যক্রম আব্দুল কাদিরের নেতৃত্বে চলমান ছিলো এবং উক্ত ওয়ার্ডগুলোর নেতা-কর্মীরা সেই বছরগুলোতে তার নেতৃত্বে সকল রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অংশ নিতেন বলে জানান তিনি। বিভিন্ন ধর্মীয় ও সমাজসেবামূলক কাজেও তিনি নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছেন। বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এম এ রশিদের নেতৃত্বে ও দিক নির্দেশনা মোতাবেক দলীয় কর্মসূচি পালন সহ দলের সকল কর্মসূচিতে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করে যাচ্ছেন।

আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল কাদির জানান, ২০১১ সালের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মেম্বার নির্বাচিত হই এবং দায়িত্ব নেয়ার পর থেকেই এলাকার মানুষের সেবায় কাজ করেছি। এলাকার রাস্তাঘাট নির্মাণ ও মেরামত, শিক্ষা, পরিবেশ, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নে ব্যাপকভাবে কাজ করেছি। সে মোতাবেক ওয়ার্ডের প্রত্যেকে আমাকে অকুণ্ঠ ভালোবাসা ও সম্মান দিয়ে থাকেন। এটা আমার জীবনে পরম পাওয়া। অত্র ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পেলে দলকে সংগঠিত করা সহ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের হাতকে শক্তিশালী করতে অত্র ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সবাইকে সাথে নিয়ে সমন্বিতভাবে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করছি।

আব্দুল কাদির আরও জানান, উক্ত ওয়ার্ডসমূহের অসংখ্য ত্যাগী নেতা-কর্মীদের না জানিয়ে ৯টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠিত হয়েছে। এতে করে অনেক যোগ্য ও ত্যাগী নেতা-কর্মীদের স্থান কমিটিতে হয়নি। ২,৩,৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের নেতা-কর্মীরা আমাকে অত্র ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দেখতে চায়। আর সেই কারণে আমি যাতে সভাপতি না হতে পারি তাই আমাকে ও আমার অনুগামী নেতা-কর্মীদের মাইনাস করে ওয়ার্ড কমিটিগুলো গঠন করেছেন বর্তমান ইউনিয়ন কমিটির সভাপতি।

যেহেতু নতুনভাবে কমিটি গঠিত হবে সেহেতু সত্যিকার আওয়ামী সৈনিক এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ অনসুরণ করে যারা দীর্ঘদিন দলের সুখে-দুঃখের সাথে মিশে ছিলেন তাদেরকে বা তাদের পরিবারের সদস্যদের অত্র ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির মত একটি গুরুত্বপূর্ণ পদ দেবার দাবী উঠেছে তৃণমূল থেকে। সেক্ষেত্রে সভাপতি হিসেবে আব্দুল কাদিরের নাম আলোচনায় আছে। মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হবার মত তার যোগ্যতা ও দক্ষতা রয়েছে বলে তৃণমূলের অনেক নেতা-কর্মীরা মনে করেন। তিনি এ পদ পেলে দলকে সংগঠিত করতে কাজ করতে পারবেন বলে তৃণমূলের প্রত্যাশা। তাই সাবেক মেম্বার আব্দুল কাদিরকে মুছাপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে মনোনীত করতে দলের হাইকমান্ডকে অনুরোধ জানিয়েছেন মুছাপুরের তৃণমূল আওয়ামী লীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা।

নিউজটি শেয়ার করুন:

আপনার মতামত কমেন্টস করুন


© All rights reserved © 2019 Newsnarayanganj71
Design & Developed BY N Host BD