বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ:
সর্বস্তরের সবাইকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন মাহাবুব পারভেজ সর্বস্তরের সবাইকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আনোয়ার হোসেন আনু শামীম ওসমান ও ডাঃ বিরুর পক্ষ থেকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নাসির উদ্দিন কাঁচপুর ইউপি’র ১নং ওয়ার্ডবাসীকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোঃ উজ্জল ধামগড় ইউনিয়নবাসীকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন শরীফ হোসেন আসুন মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করি ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি-শাহাদাৎ হোসেন আসুন মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করি ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি-মোঃ শফিউল্লাহ মদনপুর ইউপি’র ২নং ওয়ার্ডবাসীকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অহিদ ভূঁইয়া আসুন মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করি ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলি-সামছুল আলম (নয়ন) সনমান্দী ইউনিয়নবাসীকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নজরুল ইসলাম

মুক্তিযোদ্ধা আঃ আজিজের নামে পিডিবি হাইওয়ে রোড থেকে পারটেক্স সড়কটির নামকরণের দাবী

নিউজ নারায়ণগঞ্জ ৭১ ডট কমঃ
রাস্তাঘাটের নাম মুক্তিযোদ্ধাদের নামে নামকরণ করার জন্য গেল বছরের নভেম্বর মাসে দেশের সকল জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয় কর্তৃক টিঠি দেয়ার সরকারি সিদ্ধান্তকে সাধুবাধ জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা। তার ফলশ্রুতিতে নাসিক ২৭নং ওয়ার্ডের (বন্দরের) পিডিবি হাইওয়ে রোড থেকে পারটেক্স পর্যন্ত একটি অতীব গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা চলমান আছে যার নামকরণ অত্র ওয়ার্ডের হরিপুর এলাকার শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজের নামে নামকরণ করার দাবী জানিয়েছেন তার পরিবারের সদস্যরা ও স্থানীয় এলাকাবাসী।

শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজের ছোট ভাই মোঃ হযরত আলী গণমাধ্যমকে জানান, ‘১৯৭১ সালে স্বাধীন বাংলার স্বপ্নদ্রষ্টা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে আব্দুল আজিজ জীবনের পড়োয়া না করে মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন। ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর তারিখে বর্তমান নাসিক ২৭নং ওয়ার্ডের মোটামুটি সকল গ্রামেই পাক হানাদার বাহিনী অগ্নিসংযোগ করেন এবং তাদের নির্মম গুলিতে সেদিন অসংখ্য নিরীহ জনতা মারা যায়। সেদিন অত্র অঞ্চলের বেশীরভাগ মুক্তিযোদ্ধা মদনপুর স্ট্যান্ডের উত্তর পাশে অবস্থান নিয়ে যুদ্ধ করছিলেন এবং মদনপুর স্ট্যান্ড থেকে ১ কিলোমিটার দক্ষিণে তৎকালীন কুড়িপাড়া রেল স্টেশনে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ পাক হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে তুমুল লড়াইয়ে অবতীর্ণ হন। এক পর্যায়ে তার গোলাবারুদ শেষ হয়ে গেলে পাক হানাদার বাহিনীর বুলেটের আঘাতে ঘটনাস্থলেই তিনি শহীদ হন। মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার গোপীনাথ দাসের অধীনে আব্দুল আজিজ যুদ্ধ করেছেন, যার গেজেট নং-৩৬৩ এবং লালপাতা বই নং-০১০৪০২০০৫৬।

যেহেতু সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানার্থে রাস্তাঘাটের নামকরণ মুক্তিযোদ্ধাদের নামে করার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন সুতরাং উক্ত রাস্তাটি শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজের নামে নামকরণের যথাযথ পদক্ষেপ নিতে আমরা নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মহোদয়ের নিকট এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে অনুরোধ জ্ঞাপন করছি। তাছাড়া আমরা এ দাবী সংক্রান্ত একটি আবেদনপত্র এলাকাবাসীর স্বাক্ষর সংযুক্ত করে অতি শীঘ্রই মেয়র মহোদয় বরাবর প্রেরণ করতে যাচ্ছি’।

এ বিষয়ে অত্র ২৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কামরুজ্জামান বাবুল গণমাধ্যমকে জানান, ‘সরকারের এ সিদ্ধান্তকে আমি স্বাগত জানাই। যে দাবী অত্র এলাকাবাসী জানিয়েছেন সে দাবীটি যৌক্তিক এবং জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজের নামে উক্ত রাস্তার নামকরণে এলাকাবাসীর দাবীর সাথে আমি একমত পোষণ করছি। নাসিকের মেয়র মহোদয় বিষয়টিকে গুরুত্বসহকারে বিবেচনায় নিবেন বলে আমাদের প্রত্যাশা’।

নিউজটি শেয়ার করুন:

আপনার মতামত কমেন্টস করুন


© All rights reserved © 2019 Newsnarayanganj71
Design & Developed BY N Host BD